ফরিদপুরে খোলার পরদিন মার্কেট বন্ধের ঘোষণা

12

সবুজ সিলেট ডেস্ক
ফরিদপুরে ঈদকে সামনে রেখে সব মার্কেট ও বিপণি বিতান খোলার একদিন পরই বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সোমবার দুপুরে ফরিদপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি ভবনে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের এক জরুরি সভা শেষে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগে রোববার থেকে শহরের নিউমার্কেটসহ অন্যান্য বিপণি বিতানগুলো খুলে দেয়া হয়েছিল। তবে প্রথম দু’দিনেই ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় চোখে পড়ায় করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় সকল মার্কেট ও বিপণি বিতান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
বেলা ১১টার দিকে শহরের নিউমার্কেট ও চকবাজার কাপড় পট্টিতে সরেজমিনে দেখা গেছে, মার্কেটের গেটে পুলিশ প্রহরা রয়েছে। ব্যবসায়ী কমিটির কর্মকর্তারা হ্যান্ড মাইকে ক্রেতাদের সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাকাটার জন্য নির্দেশ দিচ্ছেন।
এ সময় মার্কেটের প্রতিটি অলিগলি ও দোকানের সামনে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ক্রেতাদের সিংহভাগই নারী। অনেকে শিশু কোলে নিয়ে কেনাকাটা করতে এসেছেন। কেনাকাটার সময় সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখতে দেখা গেছে অনেককে। ভিড় সামলাতে পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি ব্যবসায়ী কমিটির কর্মকর্তারা হিমশিম খাচ্ছেন।
ব্যবসায়ীরা জানান, মার্কেটে আসা ক্রেতাদের বেশিরভাগই দুরদুরান্ত ও গ্রাম হতে আসা। তারা কিনছেন কম দামের শাড়ি, লুঙ্গি, গেঞ্জি, জুতা-স্যান্ডেল ও কাপড়চোপড়। বেশি দামের কোন পণ্যই তারা বিক্রি করতে পারেননি এই দু’দিনে।
ফরিদপুর চেম্বার অব কমার্সের (এফসিসিআই) নেতৃবৃন্দ সোমবারও সরেজমিনে অবস্থা পরিদর্শন করেন। এফসিসিআই পরিচালক নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী বলেন, মার্কেটে একদিন এক পাশের ও অন্য দিনে আরেক পাশের দোকান খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। পরিবারের একজনের বেশি না আসা ও কোনক্রমেই শিশুদের না আনার কড়া নির্দেশনাও দেয়া ছিল। কিন্তু তার কোনটাই মানা হচ্ছে না।
ফরিদপুর চকবাজার বণিক সমিতির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক দিনদয়াল আগরওয়াল জানান, মার্কেটে আসা ক্রেতাদের সচেতন করতে হ্যান্ড মাইকে ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাদের সত্য নারায়ণ আগরওয়াল এন্ড সন্সসহ কিছু দোকান বন্ধ রয়েছে। অনেকে আবার তা মানছেন না বলেও জানান তিনি।
ফরিদপুরের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর তুহিন লস্কর বলেন, নারী ও শিশুদের মার্কেটে না আসার জন্য পুলিশ ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের পক্ষ হতে ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু ঘটছে তার উল্টো।
ফরিদপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে চেম্বার ভবনে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে নিয়ে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ মঙ্গলবার থেকে সকল মার্কেট ও বিপণি বিতান বন্ধ রাখার ব্যাপারে একমত পোষণ করেন।