হাওর অঞ্চলের মানুষের প্রতি আন্তরিক জননেত্রী শেখ হাসিনা

72

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি::
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা হাওর অঞ্চলের মানুষের প্রতি খুবই আন্তরিক। এ এলাকার মানুষের সুখে দুঃখে সব সময় খোঁজ খবর নেন। করোনা ভাইরাস ও বিগত দিনের বন্যায় এলাকার রাস্তাঘাট সহ অসহায় দরিদ্র মানুষের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তাই প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন যাতে অসহায় মানুষের কোন কষ্ট না হয় সেই ব্যাপারে সবাই সজাগ থাকতে হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের পিআইসিদের বিল দ্রুত যাতে পায় সেই ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। সাচনা মমিনপুর রাস্তায় মমিনপুর সড়কে মোবাইল মেন্টিনিংয়ের মাধ্যমে কাজ করার জন্য জেলা নির্বাহী প্রকৌশলীকে অনুরোধ জানান। ইউপি চেয়ারম্যানদেরকে বলেন এডিপি দিয়ে বড় রাস্তায় কাজ করা যাবে না। নীতি নৈতিকতার মধ্যে থেকে সকলের পাশে দাঁড়াতে হবে। উপজেলা কয়েকটি গ্রাম ব্যতীয় প্রায় সব গ্রামেই বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে।

হঠাৎ পানি বেড়ে যাওয়ায় আকস্মিক বন্যায় রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সুনামগঞ্জ-জামালগঞ্জ সড়কে সার্ভিস ব্রীজ করে দেওয়ার জন্য নির্বাহী প্রকৌশলীকে অনুরোধ জানান। ভরতপুর ও তেরানগর ব্রীজের দ্রুত টেন্ডার করার জন্য বলেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে বলেন উপজেলায় যেসব বিদ্যালয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, এগুলোকে দ্রুত মেরামত ও রং করার ব্যবস্থা করার জন্য।

সিআইডিআরআর প্রকল্পের মাধ্যমে সাচনা চৌধুরী বাড়ির ব্রীজ করা হবে। ৬১৮ কিঃমিঃ সাবমার্জেবল রোড অনুমোদন হয়েছে। সাচনা বাজার ইউনিয়নে পুর্বপাড়ের কয়েকটি গ্রামের বিকল্প রাস্তা হিসাবে রামনগর বাজার থেকে শেরমস্তপুর বড় রাস্তায় ৫কিঃ মিঃ রাস্তা করার জন্য নির্বাহী প্রকৌশলীকে অনুরোধ জানান।

সাচনা বাজারের পুরাতন হাসপাতাল সহ যেসব গ্রামের ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।কামধরপুরের ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা আমানীপুর বাজার থেকে বিষ্ণুপুর বাজারের রাস্তা এপ্রোভ হয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে আমাদের অনেক কাজ স্থিমিত আছে।

তাই সকলকে একযোগে কাজ করে কাজের গতি বাড়াতে হবে। গতকাল বুধবার দুপুরেউপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ঘুর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ গৃহ মেরামতের জন্য ঢেউটিন ঐচ্ছিক তহবিলের চেক বিতরণের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে একথাগুলো বলেন সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন।

চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজল হক এর সঞ্চালনায়। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাহবুব আলম, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বীনা রানী তালুকদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন।

জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুল মুকিত চৌধুরী, ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুনাসিন্ধু তালুকদার,জামালগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাইফুল আলম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাচনা বাজার ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল হক আফিন্দী, ভীমখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ দুলাল মিয়া, জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রজব আলী, বেহেলী ইউপি চেয়ারম্যান অসীম কুমার তালুকদার প্রমূখ।

আরো উপস্থিতি ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শরীফ উদ্দিন, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুস ছাত্তার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ এরশাদ হোসেন, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী রাম সাহা সহ উপজেলার আওয়ীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও তিনি জামালগঞ্জ সরকারি মডেল উচ্চবিদ্যালয়ে মাঠে ১শত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। উপজেলা পরিষদ গেইটে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলীর ব্যবস্থাপনায় হাত দুয়ার বেসিন উদ্ভোধন করেন। জামালগঞ্জ-সুনামগঞ্জ বন্যায় ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা পরিদর্শন করেন।