শুধু মানুষের ভালবাসা চায় বাউল শিল্পী কালা মিয়া

14

এম কামরুল চৌধুরী : বহু জনপ্রিয় গানের গীতিকার ও কন্ঠশিল্পী বাউল বিরহী কালা মিয়ার জন্ম, ১৯৬০ সালে সুনামগঞ্জের শান্তিগন্জ থানাধীন জামলা বাজ গ্রামে।
বাবা মৃতঃমনফর আলী,মাতা মৃতঃপরিজান বিবি, ৬ ভাই তিন বোন এর মধ্যে দুই বোন এক ভাই মারা গেছেন, ১৯৭১ সাল থেকে গানের জগতে প্রবেশ এখনও টুক টাক গাইতেছেন । তার উস্তাদ ও মুর্শিদ কফিল উদ্দিন সরকার, দাদা উস্তাদ জ্ঞানের সাগর দূরবীন শাহ, ১৯৮২ সালে স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন,তার দুই মেয়ে ও দুই ছেলের মধ্যে সকলেই লেখা পড়া করেছেন বর্তমানে দুই মেয়ে সরকারি চাকরী করছে,এবং ছেলেরা প্রবাসী ।১৯৮২ সালে বাংলাদেশ বেতারে কণ্ঠ শিল্পী হিসাবে তালিকা ভুক্ত হন,বর্তমানে বাংলাদেশ টেলিভিশনের নিয়মিত কণ্ঠ শিল্পী ও গীতিকার হিসাবে গান করে যাচ্ছেন । ১৯৮২ সাল থেকে বিভিন্ন কোম্পানীর ব্যানারে প্রায় ১৩৫ টি ফিতারএ্যালবাম বাজারজাত হয় বর্তমানে ইউটিউবসহ সহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে তার লেখা ও গাওয়া গান দর্শক শ্রুতাদের কাছে বেশ জনপ্রিয়।

বাউল বিরহী কালা মিয়ার গাওয়া এ্যালবাম থেকে অনেক জাতীয় শিল্পীরা গান গেয়ে খ্যাতি কুড়িয়ে ছেন। এ পর্যন্ত তার লিখা প্রায় ৬০০ শত গানের পাণ্ডুলিপি রয়েছে। ১৯ ৯৯ সালে কারী আমির উদ্দিন ও ঢাকার আরিফ দেওয়ানের সঙ্গে উমান দুবাই সফর করেন এবং ভারতে প্রায় আট বার সফর করেন। ২০০৪ সাল থেকে ২০১২ সালের ভিতরে আট বার লন্ডন সফর করে ভক্তদের হৃদয়ে আরো বেশি জায়গা করে নেন। দীর্ঘদিন সংগীত জগতে বাংলাদেশের অনেক গুনী শিল্পী ও গীতিকারদের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে বাউল বিরহী কালা মিয়া বলেন বাউল গান আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে মান সম্মান টাকা পয়সা পরিচিতি এখন শুধু মানুষের ভালোবাসা নিয়েই বাকি জীবন কাটিয়ে দিতে চাই।