নির্বাচনী প্রচারণায় মমতা: ‘মোদীর গ্যারান্টি জিরো, আমাদের গ্যারান্টি হিরো’

3

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গত ১৪ মার্চ নিজের বাড়িতে পড়ে গিয়ে চোট পেয়ে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। চোটের পর রোববার (৩১ মার্চ) প্রথমবার রাজ্যে নির্বাচনী সভা করলেন তিনি। আর সেই সভা থেকেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

এদিন কৃষ্ণনগরের ধুবুলিয়ায় তৃণমূল প্রার্থী মহুয়া মৈত্রের সমর্থনে অনুষ্ঠিত সভার বক্তৃতা মমতার আক্রমণের কেন্দ্রে ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ।

তিনি বলেন, মতুয়া ভাই-বোনেরা যারা ভাবছেন, বিজেপির মিথ্যা কথায় আপনি অধিকার পেয়ে গেলেন। বাজে কথা। পাসপোর্ট কেন্দ্রীয় সরকার দেয়, রাজ্য সরকার নয়। আমরা অত্যাচার করি না। অত্যাচার করে কেন্দ্রীয় সরকার। সিএএ হচ্ছে মাথা, আর লেজ হচ্ছে এনআরসি (জাতীয় নাগরিকপঞ্জি)। সিএএ করলেই আপনি এনআরসিতে পড়ে যাবেন। বিজেপির নেতারা কেন সিএএ-তে দরখাস্ত করছে না। লোকসভায় যারা বিজেপির হয়ে দাঁড়িয়েছে, তাদের সবাইকে বলুন, সিএএ-তে দরখাস্ত করতে। দরখাস্ত করলেই তারা বিদেশি হয়ে যাবে, আর নির্বাচনে দাঁড়াতে পারবে না।

মমতা বলেন, মনিপুরে সিএএ নিয়ে দুজনকে হত্যা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন বাঙালি ছিলেন। সোনারপুরের এক যুবক চিন্তা করতে করতে মারা গেছেন। আসামে কত লোক মারা গেছেন। আমি আপনাদের গ্যারান্টি দিচ্ছি, মোদীর গ্যারান্টি জিরো, আমাদের গ্যারান্টি মানুষই হিরো। আমরা সিএএ করতে দেবো না, আমরা এনআরসি করতে দেবো না। আমরা কাউকেই উদ্বাস্তু হতে দেবো না।
এরপর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি, সিবিআই-র মতো সংস্থার তৎপরতা প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, অত ভয় পাওয়ার দরকার নেই। কাউকে ইডি বা সিবিআই চিঠি দিলে উত্তর দেন, এখন ভোটে ব্যস্ত রয়েছি। ভোটের পরে দেখা যাবে। ভোট চলাকালীন এসব করা যায় না।

নির্বাচনী সভা থেকে জনগণকে সতর্ক করে মমতা আরও বলেন, রাম নবমীর মতো এবারও অন্নপূর্ণা পূজার পরের দিন দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করবে। সবাইকে বলবো, সতর্ক থাকুন। ইট মারলে পাটকেল মারবেন না। ভোটের বাক্সে দেখিয়ে দিতে হবে বাংলার গর্জন কী জিনিস।

তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, বিজেপি ভোটের জন্য সব পারে। মতুয়া থেকে মুসলিম, হিন্দু সবার মধ্যে বিভেদ তৈরির চেষ্টা করছে। তাই সবাইকে সাবধান করলাম।