জমে উঠেছে দিরাইয়ে উপজেলা নির্বাচন ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা

213

মুজাহিদ সর্দার তালহা, দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ আসন্ন দিরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচার-প্রচারণা জমে উঠেছে। বৈশাখের তীব্র গরমকে উপেক্ষা করে প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নগুলোতে মিছিল মাইকিং, উঠান বৈঠক করে নিজেদের জন্য ভোট চাইছেন প্রার্থীরা। এতে করে নির্বাচনী আমেজে সাধারণ ভোটাররাও রয়েছেন বেশ ফুরফুরা মেজাজে। এবছর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে পাঁচ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। এদের মধ্যে চারজনই আওয়ামী লীগের। তারা হলেন, দোয়াত কলম প্রতীকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়, ঘোড়া প্রতীকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন কুমার রায়, মোটর সাইকেল প্রতীকে জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট আজাদুল ইসলাম রতন, টেলিফোন প্রতীকে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট রিপা সিনহা। যেহেতু দল থেকে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি তাই সকলেই স্বতন্ত্র হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এছাড়াও সদ্য বহিষ্কারকৃত উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান গোলাপ মিয়া আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবার প্রার্থীতা উন্মুক্ত করায় অর্থাৎ দলীয় প্রার্থী না থাকায় চেয়ারম্যান পদে ভোটের লড়াই হবে ত্রিমুখী। দুই ভাগে বিভক্ত দিরাই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ২ জন। একজন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অপরজন উপজেলা যুবলীগের পদ বহন করেন। দুজনই অত্র উপজেলার বেশ জনপ্রিয় ব্যাক্তি। এদিকে বিএনপির জনপ্রিয় নেতা প্রার্থী হওয়ায় বিএনপির একচেটিয়া ভোট পাবার আশা রয়েছেন তিনি।

সব মিলিয়ে ত্রিমুখী লড়াই হওয়ার লক্ষণই দেখছেন ভোটাররা। তারা ধারণা করছেন প্রদীপ, রঞ্জন ও গোলাপের মধ্যেই ত্রিমুখী লড়াই হবে। ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন পাঁচ প্রার্থী আর মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন তিন প্রার্থী। তারা হলেন, টিউবেল প্রতীকে ফায়সাল আহমাদ, টিয়া পাখি প্রতীকে এবিএম মনসুর সুদীপ, চশমা প্রতীকে নাজমুল হাসান, তালা প্রতীকে এখলাছুর রহমান, উড়ো জাহাজ প্রতীকে রুহুল আমিন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন হাঁস প্রতীকে ছবি চৌধুরী, ফুটবল প্রতীকে রিনা বেগম, সেলাই মেশিন প্রতীকে হাফসা বেগম। ভাইস চেয়ারম্যান পদেও ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। ফায়সাল, সুদীপ ও নাজমুলের মাঝেই ত্রিমুখী লড়াই হবে বলে ধারণা ভোটারদের। সরেজমিনে দেখা যায়, বিভিন্ন স্থানের চায়ের দোকানে চলছে মুখরোচক নির্বাচনী আমেজ, প্রার্থীরা তাদের কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে বিভিন্ন স্থানে পোষ্টার, লিফলেট বিতরণের মধ্যদিয়ে ভোট প্রার্থনা করতে দেখা যায়।

সকাল থেকে মধ্য রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভোটারদের মন জয় করতে দিচ্ছেন বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি। এদিকে সাধারণ ভোটাররা আশা প্রকাশ করেন, যাকে বিপদে আপদে পাশ পাবেন এলাকায় উন্নয়ন করবেন, বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান করবেন এমন প্রার্থীদের নির্বাচিত করবেন তারা। আগামী ৮ মে দিরাই উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। একটি পৌরসভা ও নয়টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১৯৭২২৫ জন।