পঞ্চাশ এতিমের খাবার কেড়ে নিলেন সমাজসেবা কর্মকর্তা

2
মাদ্রাসার শিক্ষার্থীবৃন্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুড়িগ্রামে ৫০ জন এতিম অসহায় শিশুর খাবার কেড়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক সমাজ সেবা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। ওই সমাবসেবা কর্মকর্তা কুড়িগ্রাম জেলা সমাবসেবা অফিসার  মোঃরোকোনুল ইসলাম।

জানা গেছে, কুড়িগ্রাম চিলমারি উপজেলার গোলাম হাবিব এতিমখানা মাদ্রাসার প্রায় ৫০ জন এতিম অসহায় শিশুর ২০২২/২৩ অর্থ বছরে ২৪ জনের নামে প্রতি মাসে ৪৮০০০ টাকা বরাদ্দ ছিলো। সেখানে নতুন তালিকায় গোলাম হাবিব শিশু সদন মাদ্রাসায় নাম একেবারে তালিকা থেকে বাদ দিয়ে দিলেন কুড়িগ্রাম জেলা সমাজ সেবা অফিসার মোঃরোকোনুল ইসলাম। সমগ্র বাংলাদেশ অসংখ্য মাদ্রাসায় এতিম অসহায় শিশু নেই তারাও বছরের পর বছর লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন এমন নজির উঠে এসেছে বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

মাদ্রাসার শিক্ষার্থীবৃন্দ

অথচ চিলমারি উপজেলার গোলাম হাবিব এতিমখানা মাদ্রাসা নিয়ম মাফিক চললেও তাদের বরাদ্ধ বাতিল করেন ওই কর্মকর্তা। সরজমিন খোঁজ নিলে দেখা গেছে, কুড়িগ্রাম চিলমারী উপজেলায় গোলাম হাবিব শিশু সদন মাদ্রাসা এতিমখানায় ৪০ থেকে ৫০ জন এতিম অসহায় শিশু বসবাস করছে। তাদের খাওয়া দাওয়া ও চিকিৎসা চলছিলো সরকারি বাজেট থেকে। এখন সেই বাজেট কি কারণে বন্ধ করে দেওয়া হল তার ব্যাপারে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সমাজ সেবা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।

বর্তমানে গোলাম হাবিব এতিমখানা মাদ্রাসার অসহায় শিশু দের ভরণ-পোষণ দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সেক্রেটারি মোঃ গোলাম আশেক আকা। তিনি প্রতিষ্ঠানটির কথা বিবেচনা করে অতি দ্রুত বরাদ্ধ পুনঃবহাল রাখার জোর অনুরোধ জানিয়েছেন।